আম্পানের তান্ডবে সুন্দরবনে ভেঙ্গে পড়া অবকাঠামো দুই মাসেও সংস্কার হয়নি

আম্পানের তান্ডবে সুন্দরবনে ভেঙ্গে পড়া অবকাঠামো দুই মাসেও সংস্কার হয়নি

প্রকাশিত: ৭:৪১ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৬, ২০২০

সাগর মল্লিক (বাগেরহাট প্রতিনিধি): ঘূর্ণিঝড় আম্পানের আঘাতে সুন্দরবনে গাছপালার পাশাপাশি ভেঙেছে বিভিন্ন স্থাপনা ও বন্যপ্রাণি প্রজনকেন্দ্রের অবকাঠামো।

একই সঙ্গে, সুন্দরবনের ভিতরে ১৭ টি পুকুরে নোনা পানি ঢুকে পড়ায় হুমকির মুখে বন্যপ্রাণি। এ অবস্থায় অর্থ বরাদ্দ
পেলেই অবকাঠামো সংস্কারের উদ্যোগ নেয়ার কথা জানায়
বনবিভাগ।

ঘূর্ণিঝড় আম্পান সুন্দরবনের ওপর দাপট দেখিয়ে বিদায়
নিয়েছে ঠিকই, তবে রেখে গেছে ক্ষতচিহ্ন। আর হুমকিতে
ফেলেছে বন্যপ্রাণিদের। ক্ষতির তালিকায় যুক্ত হয়েছে সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের গাছপালা, ১৭টি জেটি, ১৬টি অফিস এবং ওয়াচ টাওয়ারসহ নানা স্থাপনা।

পুকুরগুলোতে লবণাক্ত পানি ঢুকে পড়ায় মিঠা পানির সংকটে সবচেয়ে বেশি হুমকির মুখে রয়েছে বন্যপ্রাণিরা। বন বিভাগের প্রাথমিক তদন্ত অনুযায়ী ক্ষতির পরিমাণ টাকার অংকে সব মিলিয়ে ২ কোটি ৮ লাখ টাকার মতো।

৩৯ সুন্দরবনের করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্র ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজাদ কবির জানিয়েছেন, প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষাকারী কুমির,বানর,হরিণ ও বিভিন্ন বন্যপ্রাণির একমাত্র প্রজনন কেন্দ্রেরও কয়েকটিশেডসহ ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।যেটা এখনও মেরামত করা হয় নাই।

সুন্দরবন রক্ষায় জাতিসংঘের সুপারিশ মেনে কৌশলগত সমীক্ষার দাবি বাগেরহাট সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন বলেন অর্থ বরাদ্দ পেলেই দ্রুত ক্ষতিগ্রস্থ স্থাপনা মেরামত ও মিঠা পানি নিশ্চিতে কাজ শুরুর আশ্বাস দেন তিনি।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তান্ডবে সুন্দরবন পূর্ব-পশ্চিম বিভাগে সাড়ে ১২ হাজার গাছপালা ভেঙে গেছে।

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন।