কলেজছাত্রীকে দুদিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রকাশিত: ২:৪৯ পূর্বাহ্ণ, মে ৩১, ২০২০

ঝালকাঠি সংবাদদাতা: প্রেমিকসহ অপহরণের শিকার কলেজছাত্রীকে দুদিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে কাঁঠালিয়ার পাটিকেলঘাটা গ্রামে।

এর আগে তারা দুই জনসহ তিন জনকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় সময় পুলিশ ছয় জনকে গ্রেফতার করে।

গত বৃহস্পতিবার (২৮ মে) বিকেল থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত কাঁঠালিয়া থানার ওসি পুলক চন্দ্র রায়ের নেতৃত্বে একটি অভিযান চালানো হয়। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে দেশিয় ধারালো অস্ত্র।

অপহরণের খবর পেয়ে রাতেই কাঁঠালিয়া থানায় ছুটে গেছেন রাজাপুর-কাঁঠালিয়া সার্কেল এএসপি সাখাওয়াত হোসেন। ধর্ষণের অভিযোগে ওই কলেজছাত্রী ১০ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন।

পুলিশ জানায়, বিকাশের দোকানে মুক্তিপণ হিসেবে ৫০ হাজার টাকা নেয়ার সময় আটক করা হয় সন্ত্রাসী রিপন জমাদ্দারকে। তার দেয়া তথ্যে সন্ধ্যার পর পাটিকেলঘাটা গ্রামের প্রভাবশালী আলাউদ্দিন খান বাদলের ভাই প্রবাসী বাচ্চু খানের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়।

সেখান থেকে ভুক্তভোগী প্রেমিক রিমন হাওলাদার ও তার বন্ধু রায়হান হাওলাদার ও রিমনের প্রেমিকা ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় আটক করা হয় বাদল খানের ভাইয়ের স্ত্রী হোসনেআরা বেগম,তার মেয়ে তানিয়া বেগম, রাকিব হাওলাদার, বেল্লাল খান ও আক্কাস হাওলাদারকে।

তারা এক অপহরণকারীর হাতে মেয়েটির ধর্ষণের শিকার হওয়ার কথা পুলিশকে জানিয়েছে। এ ছাড়া বাদল খানের ভাইয়ের ছেলে এজাহারভুক্ত রাব্বি খানসহ চার আসামি পলাতক রয়েছে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, এ মামলায় আসামিরা বাদল খানের স্বজন ও চিহ্নিত সন্ত্রাসী। তাদের মাধ্যমে দীর্ঘদিন থেকে এলাকায় বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড পরিচালিত হয়ে আসছে। তবে ভয়ে কেউ কিছু বলে না।

মামলার এজাহারে জানা যায়, ঈদের পরদিন রাত সাড়ে ১১টার দিকে মোটরসাইকেলে ভুল করে কাঁঠালিয়ার পাটিকেলঘাটা হয়ে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় যাচ্ছিল কলেজছাত্রী ও তার প্রেমিকসহ তিনজন।

এ সময় বাদল খানের বাড়ির সামনে ব্রিজের ওপরে তারা দাঁড়িয়ে মঠবাড়িয়া যাওয়ার পথ কোনো দিকে জানতে চাইলে সেখানে অপেক্ষমাণ আসামিরা তাদের অপহরণ করে নিয়ে যায় বাচ্চু খানের বাড়িতে। সেখানে মেয়েটিকে ধর্ষণ করা হয়।

এ বিষয়ে মেয়েটির মা ও বাবা জানিয়েছে, পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলা তাদের বাড়ি। তারা জেলে পরিবার। মেয়েটি এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। ঈদের পরের দিন ঘুরতে যাওয়ার পর থেকে সে নিখোঁজ ছিলো। তার সঙ্গে ছেলেটির সম্পর্কের কথা তারা জানতেন।

মেয়ে নিখোঁজের রাতে ও পরদিন মুক্তিপণের জন্য টাকা দাবি করা হয়। পরে জানানো হয়, মেয়েটিকে বাদলের কাছে রাখা আছে। তার কাছ থেকে নিয়ে যেতে।

পরে পুলিশ তাদের উদ্ধার করেছে। কাঁঠালিয়া থানার ওসি পুলক চন্দ্র রায় জানান, মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ভুলুয়া বাংলাদেশ/এএইচ