কাজ বন্ধ করায় প্রকৌশলীকে পেটালেন ঠিকাদার ও তার সহযোগী

কাজ বন্ধ করায় প্রকৌশলীকে পেটালেন ঠিকাদার ও তার সহযোগী

প্রকাশিত: ৫:৪৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০২০

মুক্তার হোসেন (রাজশাহী প্রতিনিধি): রাজশাহী গণপূর্ত কার্যালয়ের এক প্রকৌশলীকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছেন ঠিকাদার ও তার সহযোগীরা। পরে আহত অবস্থায় তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হয়েছে।

ঘটনার পর দুজনকেই আটক করেছে পুলিশ। সোমবার (১৭ আগস্ট) ১২টার দিকে গণপূর্ত বিভাগ-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী কার্যালয়ে এই ঘটনা ঘটে।

এ সময় ওই প্রকৌশলীর টেবিলে থাকা ল্যাপটপ এবং প্রিন্টারসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাঙচুর ও তছনছ করে তারা। এ ঘটনা মুহূর্তের মধ্যে পুরো গণপূর্ত কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

পরে খবর পেয়ে পুলিশ, র‌্যাব ঘটনাস্থলে যায় ও দু’জনকে হাতেনাতে ধরে ফেলে। পরে তাদের থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। আহত উপ-সহকারী প্রকৌশলীর নাম দেলোয়ার হোসেন (২৮)।

তিনি রাজশাহী গণপূর্ত বিভাগ-২ কার্যালয়ে কর্মরত। তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ৫ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। এ হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় বর্তমানে থানায় মামলা দায়ের প্রস্তুতি চলছে।

পুলিশের হাতে আটক দু’জন হলেন- ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান লিটন এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী রাজশাহী মহানগরের সাধুর মোড় এলাকার অধিবাসী শাহাবুল মঞ্জুর লিটন (৩১) এবং তার ব্যবস্থাপক মহানগরের উপকণ্ঠ চক কাপাসিয়ার অধিবাসী আতিকুর রহমান (৩২)।

গণপূর্ত কার্যালয়ে হামলার শিকার উপ-সহকারী প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন সাংবাদিকদের জানান, এক কোটি টাকা ব্যয়ে রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় ভূমি অফিসের নির্মাণ কাজ চলছে।

রোববার (১৬ আগস্ট) বিকেলে তিনি এ নির্মাণ কাজ পরিদর্শনে যান। তিনি গিয়ে দেখেন সেখানে নিম্নমানের ইটের খোয়া দিয়ে ঢালাই কাজ চলছে।

এছাড়া কাজের সিডিউলে চার ইঞ্চি ঢালাই দেয়ার বিষয়টি উল্লেখ থাকলেও দেয়া হচ্ছিল আড়াই ইঞ্চি। এই অনিয়মের কারণে তিনি তাৎক্ষণিকভাবে কাজটি বন্ধ করে দেন এবং নিম্মমানের নির্মাণসামগ্রী সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দেন।

উপ-সহকারী প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন আরও জানান, ওই ঘটনার জের ধরেই আজ ঠিকাদার লিটন ও ব্যবস্থাপক আতিক তার অফিসে আসেন। তারপর লিটন নিম্মমানের নির্মাণসামগ্রী সরিয়ে নেবেন না বলে জানান। এ নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়।

একপর্যায়ে লিটন ও তার সহযোগী প্রকৌশলীর ওপর হামলা চালান। লিটন কাঠের চেয়ার ভেঙে তাকে পেটান। এতে তার ডান চোখের ওপরে আঘাত লেগে ফেটে যায় এবং রক্ত ঝরতে থাকে।

এছাড়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর আঘাত পান। হামলা করেই তারা ক্ষান্ত হননি। এরপর লিটন ও তার সহযোগী আতিক ওই প্রকৌশলীর কক্ষে ব্যাপক ভাঙচুর চালান। তার ল্যাপটপ, প্রিন্টার, টেবিল ও চেয়ার ভাঙেন।

ঘটনার পর রাজশাহী গণপূর্ত বিভাগ-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী ফেরদৌস শাহনেওয়াজ কান্তা বলেন, ঠিাকাদার লিটন ও তার সহযোগী আতিক প্রকৌশলী দেলোয়ারের ওপর আতর্কিত হামলা চালিয়েছে এবং তার কক্ষে ব্যাপক ভাঙচুর করেছে। ঘটনার পরপরই তারা থানায় খবর দেন।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। খবর পেয়ে র‌্যাব সদস্যরা সেখানে যান। এরপর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। পুলিশ দু’জনকে আটক করেছে। তারা এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

রাজশাহী মহানগরের রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাত হোসেন খান জানান, গণপূর্ত কার্যালয়ে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় ঠিকাদার লিটন ও আতিকের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। মামলা হলে দু’জনকে এতে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হবে।

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন।