চীনে নতুন রূপে করোনার হানা!

প্রকাশিত: ৩:১৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩০, ২০২১

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) অস্তিত্ব প্রথম বিশ্ববাসীর নজরে আসে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে। এই শহরে করোনা যখন ভয়ঙ্কর রূপ নিয়ে একের পর এক মানুষের প্রাণ কেড়ে নিচ্ছিল তখন বিশ্ব গণমাধ্যমে গুরুত্বের সঙ্গে সংবাদ প্রচার শুরু হয়। এরপরই অল্প কিছু দিনের মধ্যেই তা ছড়িয়ে পড়ে গোটা বিশ্বে। ততক্ষণে চীন থেকে করোনা সংক্রান্ত সংবাদ প্রচারও প্রায় বন্ধ হয়ে যায়।

দাবি করা হয়, প্রাণঘাতী এই ভাইরাসকে সেখানে নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। তবে আবারও বিপদের মুখে চীন। এবার করোনা রূপ পাল্টে হানা দিয়েছে সেখানে। বিভিন্ন দেশে নানা রূপে হানার দেওয়ার পর চীনে এবার আক্রমণ শুরু করেছে করোনার ভারতীয় ধরন (‘ডেল্টা’),। উত্তর চীনের নানজিং প্রদেশে নতুন করে ছড়িয়ে পড়ছে করোনার এই ধরন, এতে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে চীনজুড়ে।

বিপুল সংখ্যক করোনা পরীক্ষা, নানা স্থানে করোনা রুখতে কড়া বিধিনিষেধের পরেও নানজিংয়ের বিমানবন্দর থেকে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করেছে সংক্রমণ। গত শীতে শেষবার করোনার এই বিপুল সংক্রমণ দেখেছে চীন। আবারও তা দেখা দিচ্ছে জুলাইয়ে এসে। নানজিং প্রদেশে এক দিনে সন্ধান পাওয়া গেছে ২০০ জন করোনা রোগী।

করোনা সংক্রমণের হাত থেকে ছাড় পায়নি বেইজিংও। সেখানে ডেল্টা ধরনে আক্রান্ত একজনের সন্ধান পাওয়া গেছে। সরকারিভাবে বলা হচ্ছে, ওই ব্যক্তি সম্প্রতি নানজিং গিয়েছিলেন। সেখান থেকে সংক্রমণ নিয়ে তিনি বেইজিংয়ে ফিরেছেন। বেইজিংয়ে ৬ মাস পর স্থানীয়ভাবে সংক্রমণের খোঁজ পাওয়া গেছে।

চীন বলছে, ডেল্টায় প্রথম আক্রান্ত হন নানজিং প্রদেশের বিমানবন্দর-কর্মীরা। দ্রুত তা ছড়িয়ে পড়ে আশেপাশে। বাড়তে বাড়তে সেই সংক্রমণ বৃহস্পতিবার পৌঁছে গেছে ২০০-তে। সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন, নানজিংয়ের যে বিমানবন্দর-কর্মীরা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের সকলেই দু’টি করে করোনা-টিকা পেয়েছেন।

তবে করোনার নতুন ধরনে আক্রান্ত হওয়ার পরেও তাদের শারীরিক অবস্থার বেশি অবনতি হয়নি। সামান্য উপসর্গের ভিতরেই সীমাবব্ধ রয়েছে সংক্রমণ। সূত্র: সিএনএন

 

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন।