ছাঁটাই আতঙ্কে পোশাক শ্রমিকরা

ছাঁটাই আতঙ্কে পোষাক শ্রমিকরা

প্রকাশিত: ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৩, ২০২০

ছাঁটাই আতঙ্কে আছেন পোষাক শ্রমিক ও কর্মচারীরা। গত ১ মাসে প্রায় ২০ হাজার কর্মী চাকরি হারিয়েছে বলে দাবি শ্রমিক সংগঠনগুলোর। আর্থিক সংকটে পড়ায় কর্মী ছাঁটাই এবং কারখানা বন্ধ করতে বাধ্য হচ্ছেন অনেক মালিক। আগামিতে সংকট আরো বাড়তে পারে আংশকা তাদের।

এদিকে সরকার এবং উদ্যোক্তাদের সমন্বয়ে তহবিল গঠন করে শ্রমিক ও শিল্পের সুরক্ষা দেয়ার পরামর্শ দিয়েছে এই খাতের বিশ্লেষকরা।করোনা মহামারি মোকাবেলায় দেশের রপ্তানি আয়ের প্রধান উৎস তৈরী পোষাক খাতে ৫  হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা দিয়েছে সরকার।

তবুও পোষাক খাতে কর্ম ছাঁটাই হচ্ছে।শ্রমিক সংগঠনগুলো তথ্য অনুযায়ী, পোষাক খাতে গত ১ মাসে প্রায় ২০ হাজার শ্রমিক  বেকার হয়েছেন। শ্রমিক ছাটাই তালিকায় আছে গাজীপুরের এমএইসসি অ্যাপারেলস, মিরপুরের রিও ফ্যাশন, সাভারের এ জে সুপার গার্মেন্টসসহ, দেশের বিভিন্ন এলাকার আরো কিছু কারখানার নাম।

এছাড়া রয়েছে ঢাকার উত্তরায় অবস্থিত শান্তা গার্মেন্টস, গাজীপুরের প্যানউইন গার্মেন্টসসহ বেশ কিছু কারখানা বন্ধ হয়ে গেছে। ছাঁটাই এবং কারখানা বন্ধ হওয়ায় কাজ হারাচ্ছে এই খাতের শত শত কর্মী। আংতকে আছেন কর্মরতরাও।

শ্রমিক সংগঠনগুলো বলছে, কর্মী ছাটাই বন্ধ না হলে এ খাতে বিশৃঙ্খলা বাড়তে পরে। রপ্তানি আদেশ বাতিল হওয়ায় আর্থিক সংকটে শ্রমিক ছাঁটাই করতে হচ্ছে বলে জানান সংশ্লিস্টরা।

এদিকে বড় বিপর্যয় এড়াতে এখনই কার্যকর উদ্যোগ নেয়ার পরামর্শ দিয়েছে আর্থিক খাতের এই বিশ্লেষক। অভিজ্ঞতা না থাকায় অনেক উদ্যোক্তারা নতুন এই পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে ব্যার্থ হচ্ছেন বলেও মনে করেন আহসান এইচ মনসুর।

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন।