জোর করে বিয়ে [] এম.এ হান্নান

প্রকাশিত: ৪:২৮ অপরাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২০

জোর করে বিয়ে (নিবন্ধ) [] এম.এ হান্নান 


বর্তমানে প্রায় দেখা যায় কিছু নারী পুরুষের ইচ্ছার বিরুদ্ধে বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে সমাজের বিভিন্নস্থানে হেঁটে বেড়ানোর দৃশ্য। যা দৃষ্টিকটু হলেও চিন্তাভাবনার কিছু বিষয় সমাজকে মাথায় নিতে হয়।

কেন মেয়েটি ছেলেটিকে বিয়ে করার জন্য হন্যে হয়ে ঘুরে বেড়ায়? অথবা ছেলে মেয়েকে? 

গভিরভাবে দৃষ্টি রাখলে দুটি বিষয় সামনে এসে দাঁড়ায়। প্রথম বিষয় হলো হয়তো মেয়েকে ছেলেটি বিয়ের প্রলোভন দেখিয়েছিল। তাই মেয়েটি জোর করছে ছেলেটিকে বিয়ে করার জন্য। দ্বিতীয় বিষয়, হয়তো মেয়েটির সাথে ছেলেটির স্বাভাবিক কথাবার্তার পর মেয়েটি ছেলেটির সম্পর্কে বিভিন্ন মাধ্যমে খোঁজখবর নিয়ে ধন-সম্পদের মোহে পড়ে ছেলেটিকে বিয়ে করার জন্য উন্মাদ হয়ে পড়েছে। ছেলেদের ক্ষেত্রেও ঠিক এমন দুটি বিষয়ই সঠিক। 
এসবক্ষেত্রে প্রায় এককেন্দ্রিক বিয়ের চাওয়াটা হয়ে থাকে। হয়তো মেয়ে রাজি থাকে ছেলে রাজি নয়। নয়তো ছেলে রাজি থাকে মেয়ে রাজি নয়। পরিবার-পরিজনের হিসেব পরের বিষয়।

ইচ্ছার বিরুদ্ধে চলে যাওয়া প্রতিটি বিষয়ই কষ্ট দায়ক। যা আমরা সহজে মেনে নিতে পারি না বা মেনে নেওয়া যায় না। জোর করে চাপপ্রয়োগ করা কোন কিছুই শুভনীয় নয়। 
সব দিক বিবেচনা করে জীবন সংসারে এক বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে আমাদেরকেই। কেননা আমরাই আমাদের জীবন বুঝার বয়স থেকে শুরু করে শেষ পর্যন্ত এগিয়ে নিতে ভূমিকাগ্রহণ করে থাকি।

জোর করে বিয়ে হত্যার মত একটি বিষয়। অন্যকে হত্যা করে নিজের আত্মতৃপ্তি প্রায় এ পৃথিবীতে কিছু বোকা মানুষ করে থাকে। যা মোটেই কাম্য নয়।

আমরা যাকে বিয়ে করবো। অথবা যে আমাদের জীবন সাথী হবে। আমরা চাইবো বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধতা যেন স্বাভাবিক নিয়মনীতি অনুযায়ী প্রতিপালিত হয়। জীবন সংসার যদি শান্তির না হয়। তা হলে সব শেষ। মৃত্যুপর্যন্ত যন্ত্রণার আগুনে পু্ড়তে হবে। 

কেউ কারো ক্ষতি করবো বা ক্ষতি হয় এমন কোন বিষয়ে নিজকে নিয়োজিত রাখবো না। জোর করে ভালোবাসা হয় না। জোর করে সংসার হয় না। পৃথিবীতে জোর করে যা হয় তা হলো অত্যাচার শোষণ নিপীড়ন। এক কথায় “না”কে জোর করে “হ্যাঁ” করা বা “হ্যাঁ” বলানো। জোর করে ভালোলাগা হয় না। জোর করে ভালোবাসা হয় না। 

জন্ম-মৃত্যু-বিয়ে এ তিনটি চিরসত্য কারো হাত নেই। সৃষ্টিকর্তাই এ তিনটি চিরসত্য সম্পর্কে ভালো জানেন। আমাদের সবাইকে সৃষ্টিকর্তার প্রতি পূর্ণ আস্থা রেখে জীবন পরিচালিত করতে হবে। জোর করে নয়। ভালোলাগা ভালোবাসায় সূচনা হোক সংসার।