ফাইল: ছবি

ঝিকরগাছায় পানিবন্দী একটি পরিবার, মিলছেনা উচ্চ মহলের প্রতিকার

প্রকাশিত: ২:৪৭ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০২০

এসএম স্বপন (যশোর) অফিস: যশোর ঝিকরগাছার এক পল্লীতে অভিযোগ ওঠেছে, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একটি পরিবারকে পানি বন্দী করে রেখেছে, মাওলানা জব্বারের শ্বশুর ইসলাম। যার ফলে পরিবারটি ঘর থেকে বের না হতে পেরে ছেলে-মেয়ে নিয়ে চরম দুর্ভোগে মানবেতর জীবন যাবন করছেন। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কুমরী গ্রামে।

জানা গেছে, ঝিকরগাছা শংকরপুর ইউনিয়নের কুমরী পূর্ব পাড়ায় ইয়াছিন নামের এক ব্যক্তি দীর্ঘদিন যাবত পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছে। সম্প্রতি টানা কয়েক দিন বৃষ্টি হওয়ায় ইসাছিনের উঠানে এখন হাঁটু সমান পানি জমে ঘরের ভিতর ছুঁই ছুঁই।ফলে রান্নাবাড়া ও খাওয়া থেকে শুরু করে ঘর থেকে বের হওয়ারও কোনো উপায় নেই এই পরিবারটির।

বর্তমানে পানিবন্ধী বা ঘরবন্দী হয়ে আছেন এ পরিবারটি। জমে থাকা পানি নিষ্কাশনের জন্য তারা বাড়ির পাশের অন্য জমির মালিক মাওলানা জব্বারের শশুর তার মালিকানা জমির ওপর দিয়ে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পানি নিষ্কাশনে বাধা দেয়ায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয় বলে জানান স্থানীয়রা।

পানিবন্দী ইয়াছিনের স্ত্রী শরিফা জানিয়েছেন, বর্ষা মৌসুম শুরু হলে আমাদের চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়। আর পাশের জমির মালিকের জমির ওপর দিয়ে পানি নিষ্কাশন আটকে দেয়ার ফলে এই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টির পানি জমে টয়লেট, টিউবওয়েল পানির নিচে তলিয়ে একাকার হয়ে যাচ্ছে। এতে নানা পানিবাহিত রোগের আশঙ্কা রয়েছে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় মেম্বারের কোনো সহযোগীতা পেয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি জানান, তার কাছে বার বার ধন্যা দেয়ার পর তিনি দু’শ টাকা দেয়ার কথা বলে নিজ উদ্যোগে পানি নিস্কাশন করার কথা বলেন।

এ ব্যাপারে ১০নং শংকরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নিছার উদ্দিন জানিয়েছে, পানিবন্দী পরিবারের কথা শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পারি মাও: জব্বারের শ্বশুর ইসলামের জমির ওপর দিয়ে পানি না যাওয়ার ফলে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। যার কারনে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে অসহায় ইয়াছিনের পরিবার।

এদিকে পাশের জমির মালিক ইসলামের ছেলে রুহুল আমিনের সাথে কথা বললে তিনি জমির নিচ দিয়ে পাইপ লাগিয়ে পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা করতে বলেছেন। সেই মোতাবেক কাজ করার প্রস্তুতি নেয়ার একদিন পরে রুহল আমিন ও মাওলানা জব্বার যুক্তি এঁটে তাদের জমির ওপর দিয়ে পানি যেতে দেবেনা বলে সাফ জানিয়ে দেয়।

এমতবস্থায়, এই পরিবারের চরম দুর্ভোগের বিষয়টি স্থানীয় মেম্বার ও গ্রাম্য মাতব্বরদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে কোনো সুরাহ না হওয়ায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার’সহ সংশ্লিষ্টের সুদৃষ্টি কামনা করেছে অসহায় পানিবন্দী পরিবারটি।

 

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ