দেশে আটকে পড়া কর্মীদের ফেরার ব্যাপারে আলোচনা বৈঠক

দেশে আটকে পড়া কর্মীদের ফেরার ব্যাপারে বাহারাইন রাষ্ট্রদূতের সাথে বৈঠক

প্রকাশিত: ৫:৫১ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৫, ২০২০

আরিফুল ইসলাম রাজু বাহরাইন থেকে: বাহরাইন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্ডার সেক্রেটারি (কন্সুলার অ্যাফেয়ার্স বিভাগের প্রধান) শেখা রানা বিনতে ঈসা আল খালিফার সাথে গত বুধবার (২৩ ডিসেস্বর) বাহরাইনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ড: মু. নজরুল ইসলামের এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

শুরুতেই রাষ্ট্রদূত ভিসার মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়া আটকে পড়া বাংলাদেশি প্রবাসীদের বাহরাইনে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে পুনরায় অনুরোধ করেন। আটকে পড়া কর্মীদের ফিরিয়ে আনা হবে না, এমন কোনও সিদ্ধান্ত এখনও নেয়া হয়নি।

তবে, শেখা রানা জানিয়েছেন এটি আসলে একটা দুর্ভাগ্য যে, করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাব পুরো বিশ্বে পুনরায় বৃদ্ধি পাচ্ছে। অর্থনীতির ওপর এর ক্ষতিকর প্রভাবে সকল স্তরে কর্মীরাই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে এবং চাকরি হারাচ্ছে। তারপরও তিনি আটকে পড়া কর্মীদের একটি হালনাগাদ তালিকা প্রেরণের অনুরোধ জানান এবং এ বিষয়ে তাদের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

এ প্রেক্ষিতে আটকে পড়া সব প্রবাসী ভাইদেরকে আগামী রবিবার (২৭ ডিসেম্বর) এর মধ্যে নিচের গুগল ফর্মটি পূরণ করার জন্যও অনুরোধ করা হলো। এ বিষয়ে আপনারা বাংলাদেশের যে কোনও কম্পিউটার/ ইন্টারনেট দোকানের সাহায্য নিতে পারেন।

https://forms.gle/JHtyM53xYES37g8H7

এদিকে, রাষ্ট্রদূত ড: মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম বাহরাইন সুন্নি ওয়াকফ’র অধীনস্থ বাংলাদেশি মুয়াজ্জিনদের ভিসা নবায়ন বিষয়টি পুনর্বিবেচনার জন্য অনুরোধ জানান।

বাংলাদেশ থেকে দক্ষ ও প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কর্মী নতুন ভিসায় নিয়োগের অনুরোধ করলে শেখা রানা বাহরাইনের বাজারে বাংলাদেশী কর্মীদের চাহিদা ও সুনামের কথা উল্লেখ করে এই বিষয়টি বিবেচনার আশ্বাস দেন। দক্ষতার গুণগতমান মূল্যায়নে দুই দেশের যৌথ একটি মেকানিজম প্রতিষ্ঠার ব্যাপারেও দু’জন আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এছাড়া মান্যবর রাষ্ট্রদূত বাহরাইনে কর্মরত বাংলাদেশি শ্রমিকদের দক্ষতা বাড়াতে প্রশিক্ষণের ব্যাপারে তার কর্ম পরিকল্পনা তুলে ধরেন এবং সহযোগিতা কামনা করেন।

দু’দেশের মধ্যকার অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নে মান্যবর রাষ্ট্রদূত ‘দশ বছর মেয়াদী কৌশলপত্রের’ বিষয়ে অবহিত করলে শেখা রানা তাতে নিবিড় আগ্রহ প্রকাশ করেন, এবং তা ফলপ্রসূ করার জন্য বাহরাইন সরকারের আশু পদক্ষেপ এর নিশ্চয়তা দেন।

এছাড়াও রাজনৈতিকভাবে তাৎপর্যপূর্ণ ও জনগুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয়ে বৈঠকে তাঁর সাথে আলোচনা হয়। পরিশেষে, মান্যবর রাষ্ট্রদূত তাকে বাংলাদেশের হালদা ভ্যালি চা এবং দেশিয় চামড়াজাত পণ্যের স্যুভেনির উপহার হিসেবে প্রদান করেন। সুত্র- বাংলাদেশ এম্বাসি বাহারাইন

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন।