ধর্ষণ: মিথ্যা মামলা করায় বাদির ৭ বছর কারাদণ্ড

ধর্ষণ: মিথ্যা মামলায় বাদির কারাদণ্ড

প্রকাশিত: ৩:১৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৬, ২০২১

জয়পুরহাট সংবাদদাতা: জয়পুরহাটে ধর্ষণের মিথ্যা মামলা করার দায়ে মামলার বাদি নন্দ রানীর ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সাথে তাকে পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) দুপুরে জয়পুরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ রুস্তম আলী এ রায় দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত নন্দ রানী কালাই উপজেলার বিয়ালা গ্রামের জীতেন চন্দ্র মালীর মেয়ে।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৪ সালের এপ্রিল মাসে কালাই উপজেলার বিয়ালা গ্রামের নিজ বাড়িতে রাতে নন্দ রানীকে একা পেয়ে একই গ্রামের আবুল হায়াৎ আলী কৌশলে ঘরে প্রবেশ করে তাকে ধর্ষণ করে।

পরদিন নন্দ রানী কালাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামির বিরুদ্ধে তদন্তকালে সাক্ষী প্রমাণ না পাওয়ায় আসামিকে অব্যাহতির দেওয়ার জন্য আদালতে আবেদন করেন।

আদালত আবেদন গ্রহণ করে ধর্ষণের এমন মিথ্যা মামলা করায় আসামির বিরুদ্ধে ৭ বছরের কারাদণ্ড ও পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানা এবং একই সাথে আসামিকে এ মামলা থেকে অব্যাহতির আদেশ দেন বিচারক।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী স্পেশাল (পিপি) অ্যাডভোকেট ফিরোজা চৌধুরী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

 

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন।