নির্যাতনের কথা জানালেন নোয়াখালীর আরেক গৃহবধূ

নির্যাতনের কথা জানালেন নোয়াখালীর আরেক গৃহবধূ

প্রকাশিত: ৩:৫২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১০, ২০২০

নোয়াখালী প্রতিনিধি: ভিডিওবার্তায় স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের হাতে নির্মম নির্যাতনের চিত্র তুলে ধরেছেন নোয়াখালীর সুবর্ণচরের এক গৃহবধূ। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিওটি প্রকাশের পর শুক্রবার (৯ অক্টোবর) বিকেলে গৃহবধূর স্বামী জয়নালকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ভিডিওতে দেখা যায়, নির্যাতিতা তার ওপর ঘটে যাওয়া নির্যাতনের বর্ণনা দিচ্ছেন। এসময় তিনি জানান, ২০১৫ সালে সুবর্ণচর উপজেলার চরক্লার্ক ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ চরক্লার্ক গ্রামের মৃত মনির আহম্মেদের ছেলে জয়নাল আবেদিনের (৩৭) সঙ্গে তার বিয়ে হয়।

বিয়ের পর জানতে পারেন জয়নাল আগে আরো একটি বিয়ে করেছেন এবং ওই ঘরে দুটি সন্তানও রয়েছে। বিয়ের তিন মাস পর থেকে ব্যবসা করার নাম করে ৮০ হাজার টাকাও নেন জয়নাল।

এছাড়াও গত এক বছর ধরে তাকে যৌতুকের দাবিতে জয়নাল আবেদিন ও তার বড় ভাই মাঈন উদ্দিন (৪০), জসিম উদ্দিন (৪৩), মাঈন উদ্দিনের ছেলে তারেক (১৯) একাধিকবার মানসিক নির্যাতন করেন।

তিনি আরও জানান, গত তিন-চার মাস তার পরিচিত লোকের সঙ্গে টাকার বিনিময়ে রাত কাটাতে বাধ্য করার চেষ্টা করেন। এতে রাজি না হলে শুরু হয় নির্মম নির্যাতন। মেয়ের ওপর এমন নির্যাতনের খবর পেয়ে তার মা মেয়েকে স্বামীর বাড়ি থেকে নিয়ে আসতে গেলে অভিযুক্তরা তাকেও পিটিয়ে আহত করেন।পরে কৌশলে তারা জয়নালের বাড়ি থেকে পালিয়ে এসে চরজব্বার থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

চরজব্বার থানার পরিদর্শক ইব্রাহিম খলিল জানান, অভিযোগ ৭ অক্টোবর করা হলেও কিছু ভুল থাকায় শুক্রবার তা সংশোধন করে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। বিকেলে অভিযুক্ত আসামি জয়নালকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গত ৭ অক্টোবর পাঁচজনকে আসামি করে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে বাড়িতে গেলে মারধর করে আহত করেন স্বামী জয়নাল। অপরাধীরা গৃহবধূকে বিভিন্ন মাধ্যমে গুম-খুনের হুমকি দিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন নির্যাতিতা।

লিখিত অভিযোগের ৭২ ঘণ্টা পার হয়ে গেলেও অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার না করায় নির্যাতিতাকে পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে। এমন ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশের পর পুলিশ আসামি জয়নালকে গ্রেপ্তার করে।

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন।