ফাইল: ছবি

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক কিটে দুই নমুনা পরীক্ষা

প্রকাশিত: ৭:২২ অপরাহ্ণ, জুন ২৮, ২০২০

মাহবুবুর রহমান বাবু, নোয়াখালী: নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক কিটে দুই নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। এধরনের পরীক্ষায় সঠিক ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে এবং কিটের সাশ্রয় হচ্ছে। এ প্রতিষ্ঠানে ৫’শ কিট আছে যা দিয়ে ১হাজার নমুনা পরীক্ষা করা যাবে এবং এ সপ্তাহে কিটের সংকট পরবেনা বলে জানান সংস্লিষ্টরা।

নোবিপ্রবি মাইক্রোবায়োলজী বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, একটি কিটে ৫০ মাইক্রোলিটার রিএজেন্ট থাকে। এখান থেকে ভেঙ্গে অর্ধেক (২৫ মাইক্রোলিটার) রিএজেন্ট ব্রবহার কওে দেখা গেছে পরীক্ষার ফলাফল সঠিক থাকে। গত সপ্তাহে আইইডিসিআর থেকে একটি বিশেষজ্ঞ দল এসে ফলাফল সঠিক পেয়ে এভাবে পরীক্ষার অনুমতি দিয়ে গেছেন।

অপরদিকে কিট সংকটে কয়েকদিন ধরে পরীক্ষা বন্ধ থাকায় নোয়াখালী আব্দুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের পিসিআর ল্যাবে নমুনার জট সৃষ্টি হয়েছে। এতে পরীক্ষার ফলাফলের জন্য অপেক্ষায় থাকা রোগীরা পড়েছেন চরম বিপাকে।

এছাড়াও অনেকে উপসর্গ নিয়েও এখন পরীক্ষা করাতে পারছেন না।। বর্তমানে পরীক্ষার জন্য যে পরিমাণ নমুনা জমা আছে সেগুলো টেস্ট করার পর আর কোন কিট অবশিষ্ট থাকবে না। আবার কিট কবে পাবেন এমন কোন নিশ্চিত তথ্যও তাদের কাছে নেই।

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের প্রধান সমন্ময়কারী ও বিশ^বিদ্যালয়ের প্রক্টর অ্যধ্যাপক ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর জানান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনায় গত সপ্তাহ থেকে ১টি কিট দিয়ে ২টি নমুনা পরীক্ষা করছেন এবং ফলাফল সঠিক পাচ্ছেন।এতে কিটের সাশ্রয় হচ্ছে বলে জানান তিনি। তাদের সংগ্রহে যে কিট রয়েছে তা দিয়ে আরো এক সপ্তাহ পরীক্ষা চালিয়ে নেয়া যাবে।

নোয়াখালী জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার জানান, কিট সংকটের বিষয়ে আমরা ডিজি মহোদয়কে জানিয়েছি। আশা করি কিছুদিনের মধ্যে এ সমস্যার সমাধান হবে।

তিনি আরো জানান, কিট স্বল্পতা এবং ল্যাবে শৃঙ্খলার জন্য আগের মতো যে কেউ চাইলেই এখন আর পরীক্ষা করার সুযোগ থাকছে না। শুধু যাদের উপসর্গ দেখা দিয়েছে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হব্। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী প্রতিটি উপজেলা থেকে দৈনিক মাত্র ৩০টি নমুন সংগ্রহ করা হবে।

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ