'পাপুল-হারুন'র পদ বাতিলে রুল জারি

‘পাপুল-হারুন’র পদ বাতিলে রুল জারি

প্রকাশিত: ৫:০২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০২০

বিএনপি দলীয় চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) হারুনুর রশিদ এবং কুয়েতে গ্রেপ্তার সংসদ সদস্য পাপুলের পদ কেন বাতিল হবে না- জানতে চেয়ে আলাদা রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) জনস্বার্থে দায়ের করা একটি রিটের শুনানি নিয়ে বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রুল জারি করেন।

এমপি হারুন একটি দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছর সাজাপ্রাপ্ত আসামী বলে জানা গেছে। গত বছর অক্টোবরে শুল্কমুক্ত গাড়ি আমদানি সুবিধা নিয়ে পরবর্তীতে তা বিক্রি করে শুল্ক ফাঁকির অভিযোগে বিএনপির সংসদ সদস্য হারুন অর রশীদকে পাঁচ বছরের কারাদন্ড দেয় আদালত।

একইসঙ্গে তাকে ৫০ লাখ টাকা অর্থদন্ড করা হয়। অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদন্ড দেন আদালত। ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম ৪০৯ ধারায় এ রায় দেন।

অন্যদিকে মানবপাচার, মানি লন্ডারিং, ঘুষ প্রদানের মত অভিযোগে কুয়েতে গ্রেপ্তার সংসদ সদস্য পাপুলের পদ কেন বাতিল হবে না- জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

বর্তমানে কুয়েতের কারাগারে বন্দী আছেন বাংলাদেশের এমপি শহীদ ইসলাম পাপুল। এমন অবস্থায় এই রুল জারি করলেন হাইকোর্ট।

সম্প্রতি কুয়েতে অর্থ ও মানবপাচারের অভিযোগে আটক বাংলাদেশি সংসদ সদস্য কাজী শহীদুল ইসলাম পাপুল ও তার সহযোগীর জামিন আবেদন নাকচ করে দেশটির একটি আদালত।

আটদিনব্যাপী জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশ ৭ শীর্ষ কর্মকর্তাসহ তিন সরকারি কর্মকর্তার সংশ্লিষ্টতা পায় বলে জানিয়েছে দেশটির গণমাধ্যম আরব টাইমস অনলাইন। ওই কর্মকর্তারা ঘুষ এবং উপহারের বিনিময়ে তাকে বিশেষ সুবিধা দিয়েছিল বলে জানানো হয়েছে।

কাজী পাপুলের বিরুদ্ধে আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন ১১ প্রবাসী বাংলাদেশি। তাদের অভিযোগ, ভিসা ও আকামা নবায়নের নামে তাদের কাছ থেকে অর্থ নিয়েছিল কাজী পাপুল।

সুত্রের বরাত দিয়ে আরব টাইমস জানায়, তিনি সম্প্রতি বিভিন্ন দেশের কয়েকটি ব্যাংকে কয়েক লাখ কুয়েতি দিনার হস্তান্তর করেছেন। অর্থ ও মানবপাচারের মামলায় নাম উঠে আসার পর কর্মকর্তাদের মোটা অঙ্কের ঘুষ দেন তিনি।

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন।