ফকিরহাটে শিক্ষকের বিরুদ্ধে অর্থ বাণিজ্যের অভিযোগ

প্রকাশিত: ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২০

খুলনা ব্যুরোঃ বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট উপজেলার আট্টাকা কেরামত পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অসিম কুমার সরকারি নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এ্যাসাইনমেন্ট বাবদ জন প্রতি নগদ ৫০০ টাকা করে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

উক্ত টাকা গ্রহন করে কোনো প্রকার টাকা জমা দেয়ার
রশিদ দিচ্ছেন না বলে জানা যায়। এবিষয়ে সাংবাদিকেরা জানতে চাইলে সহকারি প্রধান শিক্ষক রেনু বেগম ক্ষুব্ধ হয়ে অশালীন আচরণ করেন এবং তিনি সাংবাদিকদের
দেখে নিবেন বলে হুমকি প্রদান করেন।

এমনকি ফকিরহাট উপজেলা প্রেসক্লাব গেটের সামনে এসে হুমকি দিয়ে বলেন বেরিয়ে আয়, তুই প্রমান দে। নানাবিধ অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে। এ ছাড়াও সহকারী প্রধান শিক্ষক রেনু বেগম এর বিরুদ্ধে ছাত্র বা ছাত্রীদের সাথে অশালীন আচরণ করা’সহ একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে।

আট্রাকা কেরামত আলী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বিশ্বাস সাইফুল ইসলাম বলেন, রশিদ ছাড়া অর্থ গ্রহণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আমি অবগত হয়েছি।পরে আমি শিক্ষদের ডেকে সকলের টাকা ফেরত দিতে বলেছি ও রশিদ ছাড়া কোনো প্রকার টাকা গ্রহণ করতে নিষেধ করেছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার দেবাষিশ বিশ্বাস বলেছেন, এ্যাসাইনমেন্ট বাবদ কোন প্রকার ফি নেয়ার নিয়ম নাই। আর যদি অন্য কোনো খাতে নেয়া হয়ে থাকে তবে রশিদ প্রদান করতে হবে। যদি কোনো শিক্ষক এরকম কাজ করে তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

উল্লেখ্য; এ বিষয়টি জানাজানি হলে ইতোমধ্যে অনেক শিক্ষার্থীদের টাকা ফেরৎ দেয়া হয়েছে।

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন।