বাগেরহাটে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মৎস্য উৎপাদন

বাগেরহাটে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মৎস্য উৎপাদন

প্রকাশিত: ২:৪৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০২০

সাগর মল্লিক (বাগেরহাট প্রতিনিধি): বাগেরহাটে দিনে দিনে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মৎস্য চাষ। প্রায় জেলার প্রতিটি উপজেলাতে এখন এই পদ্ধতিতে মৎস্য চাষ হয়ে উঠেছে সবার কাছে ব্যাপকভাবে জনপ্রিয়।

টেকসই মৎস্য চাষের লক্ষ্য সমূহ পূরণে বিভিন্ন পদ্ধতির মধ্যে বায়োফ্লক টেকনোলজি পদ্ধতি হলো অন্যতম। এই বায়োফ্লক টেকনোলজি পদ্ধতি ব্যবহার করে অল্প জমিতে অধিক পরিমাণ মৎস্য উৎপাদনে সক্ষম হচ্ছেন চাষীরা।

আর এই ধারা অব্যাহত থাকলে সরকারের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

জানা গেছে, বিশ্বের অন্য দেশগুলোতে এ প্রযুক্তি বা পদ্ধতি ব্যবহার করে বিভিন্ন প্রজাতির মৎস্য চাষ করা হয়। কিন্তু আমাদের দেশে এ প্রযুক্তি বা পদ্ধতির মাধ্যমে মৎস্য চাষ এখনও ব্যপকভাবে শুরু হয়নি।

তবে চাষীদের দাবি, সরকারিভাবে সহযোগিতার পাশাপাশি যদি সহজ ঋণের ব্যবস্থা চালু করে তবে যেমন অনেকের আগ্রহ বাড়বে তেমনি হ্যাচারী থেকে সঠিক মৎস্য পৌঁছে যাবে চাষীদের মাঝে। আর এই পদ্ধতির চাষেও মিলছে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা।

হ্যাচারীতে বায়োফ্লক এবং রিসাইকেলিং পদ্ধতিতে মৎস্য চাষের ফলে স্থানীয় অনেকেই কর্মসংস্থান করে পরিবার পরিজন নিয়ে সুখে শান্তিতে আছেন।

মো. শেখ হাফিজ (বায়োফ্লক হ্যাচারী মালিক) তিনি বলেন, আমি ১৫ বছর ধরে হ্যাচারী থেকে মৎস্য উৎপাদন করছি। আমরা যদি এ থেকে ব্যাপকহারে সঠিকভাবে মৎস্য পোনা উৎপাদন করি তবে সরকারের সহযোগিতার পাশাপাশি আমাদের সহজ ঋণের প্রয়োজন।

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন।