বেনাপোল বন্দর দিয়ে শুরু হলো ভারত-বাংলাদেশের পণ্য বাণিজ্যিক সম্পর্ক

বেনাপোল বন্দর দিয়ে শুরু হলো ভারত-বাংলাদেশের পণ্য বাণিজ্যিক সম্পর্ক

প্রকাশিত: ৪:৪২ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৬, ২০২০

এসএম স্বপন(বেনাপোল প্রতিনিধি): বেনাপোল স্থল বন্দরে ভারত বাংলাদেশ বাণিজ্যিক সম্পর্কের নতুন দিগন্ত শুরু হলো মাল্টিমোডাল কন্টেইনার রেলের মাধ্যেমে পণ্য আসা।

রবিবার (২৬ জুলাই) বেলা ১২ টায় প্রথম কন্টেইনারবাহী ট্রেনটি ভারতের কন্টেইনার কর্পোরেশন অব ইন্ডিয়ার ৫০ টি সাইটডোর কন্টেইনারে পিএন্ডজি বাংলাদেশ লিমিটেড সহ মোট ৮ টি কোম্পানির ৬৪০ টন পণ্য নিয়ে বেনাপোল বন্দরে এসে পৌঁছে।

আর নতুন এ বাণিজ্যিক সম্প্রসারনের নতুন দিগন্তের শুভ সুচনার শুভ উদ্বোধন করে বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার আজিজুর রহমান।

কন্টেইনার কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়ার এজেন্সি হিসেবে টিসিআই বাংলাদেশ লিঃ এবং এটির ভেন্ডর পার্টনার এম এম ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। ইতোপুর্বে সড়ক পথে ভারত থেকে বেশীর ভাগ পণ্য আমদানি হতো।

রেলে কন্টেনারের মাধ্যমে আমদানি হলে আমদানিকারক পণ্যের নিরাপত্তাসহ খরচ ও সময় উভয় বাঁচবে। বাংলাদেশ ও ভারত কাস্টমসের যৌথ প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ ও ভারত রেলওয়ে এই সেবাটি বাস্তবায়ন করেছে। এই কন্টেইনার মুভমেন্টের ফলে দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যক সম্পর্ক যেমন উন্নয়ন হবে ঠিক তেমনি দুই দেশের ব্যবসায়িগন ও উপকৃত হবেন। ভারত থেকে বেনাপোল রেল স্টেশনে ফ্লাট ওয়াগন ২৫টি বগিতে ৫০ টি কন্টেইনার নিয়ে আসে।

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার আজিজুর রহমান বলেন, করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) শুরুতে উভয় দেশের আমদানি-রফতানি বাণিজ্য ব্যাহত হচ্ছিল। আজ রবিবার কন্টেইনারের মাধ্যমে আমদানি বাণিজ্য শুরুতে আমাদের স্টক হোল্ডারসহ সকল ব্যবসায়ীর বাণিজ্য সম্প্রসারনে নতুন দিগন্তের সূচনা হলো।

এতে সময় খরচ যেমন বাঁচবে তেমনি যথেষ্ট নিরাপত্তাও রয়েছে। ভারত থেকে রেলযোগে মালামাল (পণ্য) আসলে আমাদের রেল খাতেও উন্নয়ন হবে। বন্দর একটি চার্জ পাবে। ব্যবসায়ীদের খরচ কম হবে। আগে সাধারণ রেলে পণ্য এসেছে ভারত থেকে। এখন থেকে কন্টেইনারের মাধ্যেমে পণ্য আসা শুরু হলো।

বেনাপোল বন্দরের উপ-পরিচালক মামুন কবির তরফদার বলেন, ভারত থেকে আজ থেকে ওয়াগন ট্রেনে কন্টেইনার এর মাধ্যমে পণ্য আসায় ব্যবসায়ীদের মনে আশার আলো সঞ্চার হয়েছে।

বেনাপোল রেল স্টেশন মাস্টার সাইদুজ্জামান বলেছেন, ভারত থেকে পণ্যবাহী ওয়াগান আসায় রেল কর্তৃপক্ষ পণ্যবাহী কন্টেনাইনার প্রতি ৬৪৪০ টাকা পাবে ও খালি কন্টেইনার ফিরে যাওয়ার সময় রেল কর্তৃপক্ষ পাবে কন্টেইনার প্রতি ৪৫৭৫ টাকা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- যশোর-বেনাপোল বন্দর এর উপ-পরিচালক আব্দুল জলিল, যুগ্ম কমিশনার শহিদুল ইসলাম, বেনাপোল সিএন্ডএফ এ্যাসোসিয়েশন এর সভাপতি মফিজুর রহমান স্বজন, আওয়ামী লীগ নেতা নাসির উদ্দিন প্রমুখ।

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

নিউহটি শেয়ার করুন।