আলতাফ হোসেন মাস্টার

রায়পুরে সংঘর্ষের ঘটনায় আলতাফ হোসেন মাস্টার’সহ ২৩৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত: ৯:০৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০২০

রায়পুর সংবাদদাতা: লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুরে আধিপত্য বিস্তার ও দলীয় কোন্দলকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় ২৩৮ জনের বিরুদ্ধে মামালা করেছেন উপজেলার যুবলীগ নেতা রাশেদ খলিফা।

মামলার এ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, রায়পুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবদুল জলিল।

সূএমতে, আধিপত্য বিস্তার ও দলীয় কোন্দলকে কেন্দ্র করে রায়পুরে খাসেরহাট এলাকায় আওয়ামী লীগের দূ-পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় শনিবার রাতে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। উত্তর চরবংশী ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা রাশেদ খলিফা বাদী হয়ে রায়পুর থানায় এ মামলা দায়ের করেন।

এদিকে মামলায় ৩৮ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ২’শ জনকে অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে। এই মামলার প্রধান আসামী আওয়ামী লীগ নেতা ও রায়পুর উপজেলা পরিষদ সাবেক চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন মাষ্টার।এ ঘটনার পর প্রধান আসামীসহ অন্য আসামীদের গ্রেফতারের অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

রায়পুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবদুল জলিল জানান, আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। রায়পুরে কোনো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ও আইনশৃংখলা অবনতি হয়, এমন কোনো কাজ চলতে দেয়া হবেনা।

তিনি আরও বলেন- সন্ত্রাসী,মাদক,অস্ত্রবাজির সাথে যারাই জড়িত থাকুক, সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (১০ জুলাই) রাতে চরবংশী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ যুগ্ন আহ্বায়ক রহুল আমিন খালিফা এবং সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা আলতাফ হোসেন মাস্টার পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ভাংচুর ও সংঘর্ষ হয়। এ সময় ২০ জন আহত হয়।

তবে দু’পক্ষের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার ও দলীয় কোন্দলের কারনে এ সংঘর্ষ হয় বলে দাবি করেন দলীয় নেতাকর্মীরা।

এদিকে গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আলতাফ হোসেন মাষ্টার দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় বিদ্রোহী প্রার্থী  হিসেবে ভোট করে পরাজিত হন। সে সময় উত্তর চরবংশী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

ওই সময় দলীয় শৃংখলা অমান্য করে প্রার্থী হওয়ায় তাকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়। এর পরেই তার বহিস্কারদেশ প্রত্যাহার করা হয়নি বলে জানিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা।

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন।