লক্ষ্মীপুরে দুই নারীর মৃতদেহ উদ্ধার!

লক্ষ্মীপুরে দুই নারীর মৃতদেহ উদ্ধার!

প্রকাশিত: ৮:৩১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১১, ২০২০

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরে পৃথক স্থান থেকে কুলছুমা ও চম্পা বেগম নামে দুই নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশ জানায়,দুপুরে সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ এলাকায় ডোবা থেকে চম্পা বেগম নামে এক নারী ও  সকালে রায়পুরের উত্তর চরবংশী থেকে ৪০ বছর বয়সী কুলছুমা বেগম এর মৃতদেহ তার স্বামীর বাড়ী থেকে উদ্ধার করা হয়। এর পৃথক দুই নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়।

চম্পা বেগম কালভার্ট এলাকার মৃত আলী হোসেনের স্ত্রী। তার ৫ মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। ছেলে চট্টগ্রামের একটি মাদরাসায় পড়ালেখা করে। মেয়েরাও বিবাহিত। বাড়িতে তিনি একাই থাকতেন।

এ ছাড়া উত্তর চরবংশী ইউনিয়ন চরবংশী গ্রামের কুলছুমা (৪০) ওই গ্রামের হাফেজ আলী ফকিরের মেয়ে। সংসারে বিয়ের পর এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানায়, সকালে স্থানীয় কয়েক শিশু চম্পা বেগমকে বাগানে ও ডোবার আশপাশে কচুর লতি খুঁজতে দেখে। দুপুরে তার মরদেহ ডোবায় ভেসে উঠে।

স্থানীয়রা দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। নিহতের নাক ও মুখ দিয়ে রক্ত ঝরতে দেখা যায়। নারীর কোমড় থেকে ব্যবহৃত মোবাইল সেট উদ্ধার করা হয়। পুলিশের প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছে, চম্পা বেগম স্ট্রোক করে ডোবায় পড়ে পানিতে ডুবে মারা যান।

এদিকে রায়পুরের উত্তর চরবংশী গ্রামে যৌতুকের টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে মারধর করে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ও শশুর পরিবারের লোকজনের বিরুদ্ধে। রোববার ভোর রাতে পুলিশ কুলছুম বেগম মৃতদেহ স্বামী মিজান মল্লিকের ঘর থেকে ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করেন। ঘটনার পর থেকে স্বামী মিজান মল্লিকে আটক করা হয়। এছাড়া  তার পিতা কাশেম মল্লিক পলাতক রয়েছেন।

সদর থানার পুলিশ কর্মকর্তা একেএম আজিজুর রহমান মিয়া জানান, নারীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে কি কারণে মৃত্যু হয়েছে তা জানা যাবে।

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন।