লক্ষ্মীপুরে হামলায় নিহত ১,আহত ৪

প্রকাশিত: ৫:১৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৫, ২০২২

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চররমনী মোহন এলাকায় নাতনিকে বাঁচাতে গিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় নাজিম সর্দার (৬৫) নামে এক বন্ধু নিহত’সহ চারজন আহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম ৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে সদর থানায় একটি মামলা করেন। পুলিশ এ ঘটনায় আসামি আরিফ নামে ১ জনকে গ্রেপ্তার করেন। গ্রেপ্তাকৃত আরিফ মধ্যচররমনী মোহন বেদেপল্লির গোলাপ সর্দারের ছেলে।

পুলিশ ও ভুক্তভোগীরা জানিয়েছেন, মধ্যচররমনী মোহন বেদেপল্লির আব্বাছ সর্দারের মেয়ে নুপুরকে ১৪ এপ্রিল বৃহস্পতিবার গোপনে বিয়ে করে একই এলাকার গোলাপ সর্দারের ছেলে মো: আরিফ। বিয়ের ঘটনাটি জানাজানি হওয়ায় ক্ষিপ্ত হন করের পিতা মোঃ গোলাফ সর্দার।

মামলার বাদী (আনোয়ারা বেগম) জানান, কয়েক বছর পূর্বে এই তার নাতিন নুপুরকে নৌকায় ধর্ষণের চেষ্টা করেন। গোলায় সর্দারের ছেলে আরিফ। এ ঘটনায় মামলার পর থেকে দুই পরিবারের মধ্যে চলে আসছে বিরোধ।

সম্প্রতি হাইকোর্ট থেকে জামিনে এসে মামলা থেকে রেহাই পেতে গোপনে নুপুরের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করে আরিফ। অগোচরে গোপনে বিয়ে করেন আরিফ ও নুপুর। বিষয়টি জানাজানি হওয়ায় ক্ষিপ্ত হন আরিফের পিতা গোলাপ সর্দার।

বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ১টার দিকে গোলাপ সর্দার ও তার পরিবারের ৭/৮ জনের একটি দল নিয়ে তাদের বসতঘরের দরজা ভেঙে প্রবেশ করে এলোপাতাড়িভাবে মারধর করেন হামলাকারিরা। এসময় সবার চিৎকারে নাজিম সর্দার এলে তাকে মারধর করে আহত করা হয়। পরে স্থানীয় লোকজন বৃদ্ধকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।

কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ আনোয়ার হোসেন জানান, রাতে নাজিম সর্দারকে তার স্বজনরা সদর হাসপাতলে নিয়ে আসেন। হাসপাতাল আসার আগেই তার মৃত্যু হয়। ময়না তদন্তে তার শরীরের মারধরের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

সদর থানার ওসি (তদন্ত) মো. মমিনুল হক হত্যার ঘটনাটি নিশ্চিত করে তিনি জানিয়েছে, সদর উপজেলার চররমনী মোহন এলাকায় প্রতিপক্ষের হামলায় নাজিম সর্দার (৬৫) নামে এক বৃদ্ধ নিহতসহ চারজন আহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো কয়েকজনকে অভিযুক্ত করে মামলা করে। ওই মামলায় এক জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়া অন্য আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ তৎপর রয়েছেন।

 

ভুলুয়াবিডি/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন।